প্রিন্সিপাল এম এ হান্নান স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদকের আলোচনায়

প্রচ্ছদ রাজনীতি

লম্বা বিরতির পর কেন্দ্রীয় সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হওয়ায় আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগে ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্যতা। নতুন কমিটিতে স্থান পেতে বিভিন্ন পর্যায়ে চলছে পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ। তাই বর্তমানে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়’র কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও মূল দলের ধানমণ্ডিতে সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় সংগঠনটির নেতাকর্মীদের পদচারণায় মুখরিত। কিন্তু সংগঠনটির শীর্ষ দুই নেতৃত্বে কারা আসছেন সেটি কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না। তবে স্বেচ্ছাসেবক লীগের এই নতুন নেতৃত্বের জন্য আলোচনায় আছেন অনেকেই। কারণ, সংগঠনটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পদে যে নতুন মুখ আসছে সেটি মোটামুটি নিশ্চিত।

বুধবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির পদ থেকে বাদ দেয়া হয়েছে মোল্লা আবু কাওছারকে। সরাকরের চলমান শুদ্ধি অভিযানে নাম আসায় তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মোল্লা আবু কাওছারকে স্বেচ্ছাসেবক দল থেকে বাদ দিয়েছেন বলে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন। এদিকে সংগঠনটির বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথকে সংগঠনের সকল প্রকার সাংগঠনিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংগঠনটির তৃতীয় সম্মেলনের মধ্য দিয়ে পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি আছে—এমন সৎ ও দলের দুঃসময়ে মাঠে থাকা নেতাদের হাতে নেতৃত্ব তুলে দেওয়া হবে। নেতাদের নানা অপকর্মে ভাবমূর্তির সংকটে পড়া সংগঠনকে সঠিক ধারায় ফিরিয়ে সত্যিকার অর্থেই ‘স্বেচ্ছাসেবক’ লীগ গড়ে তুলতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন দলের দুর্দিনে মাঠে থেকেছেন কিশোরগঞ্জের কৃতি সন্তান সাবেক ছাত্র নেতা বর্তমান স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক প্রিন্সিপাল এম এ হান্নান।

জনাব প্রিন্সিপাল এম এ হান্নান বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক,কিশোরগঞ্জ ও নওগাঁ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাবেক সভাপতি । তিনি দলের দুঃসময় তথা ১/১১ এর রাজপথের অগ্রজ সৈনিক।