স্ত্রীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে স্বামীর আত্মহত্যা!

প্রচ্ছদ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় সাইফুল ইসলাম (২০) নামে এক ব্যক্তি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

শনিবার সকালে উপজেলা সদরের মাদ্রাসা ঘোনা এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনেরা জানায়, দেড় বছর আগে প্রেম করে সাইফুল তার চেয়ে বয়সে বড় মাদ্রাসা ঘোনা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তারের মেয়ে হামিদা বেগমকে (২৫) বিয়ে করেন।

বিয়ের পর থেকেই দিনমজুর সাইফুল দম্পতির মধ্যে কলহ দেখা দেয়। হামিদা স্বামীকে মানসিক ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন।

শুক্রবার রাতেও তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। এরপরই বাসার পাশে রাস্তায় গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় সাইফুলের লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।

পরিবারের ধারণা, ক্ষোভ আর অভিমানে সাইফুল আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন।

নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপির সদস্য আরেফ উল্লাহ ছুট্ট জানান, সাইফুলের স্ত্রী তাকে প্রায়ই গালমন্দ করতেন। এতে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন।

থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জায়েদ নুর জানান, সাইফুলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

তবে এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় কেউ মামলা করেনি বলেও জানান তিনি।