সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় নেতাকর্মীদের জনস্রোত

প্রচ্ছদ

নির্ধারিত সময়ের আধা ঘণ্টা আগে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভা শুরু হয়ে গেছে। দুপুর দেড়টায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে জনসভার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। কোরআন তেলাওয়াত করেন ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ নেছারুল হক।

জনসভার শুরুতেই বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রবীণ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলামের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ ৭ দফা দাবিতে বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতা, গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন নতুন জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভা শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর দেড়টায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের মধ্য দিয়ে জনসভার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এই সভা চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। কোরআন তিলাওয়াত করেন হাফেজ মাওলানা নেসার উদ্দিন। এর পর সদ্য প্রয়াত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

এদিকে সকাল থেকেই রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সামনে জড়ো হতে থাকেন জোটের নেতাকর্মীরা। রাজধানীসহ ঢাকার আশপাশের জেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা স্লোগানে স্লোগানে সমাবেশস্থল মুখর করে রেখেছেন। তাদের হাতে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের প্রধাননেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মজলুম জননেতা তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি সহ ছবি সম্বলিত ফেস্টুনও দেখা যায়। দেখা যায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগানযুক্ত ব্যানারও। এ ছাড়া গণসংগীতও পরিবেশন করা হয়। এ সময় নেতাকর্মীরা ‘বন্দি আছে আমার মা, ঘরে ফিরে যাবে না’, ‘হামলা করে আন্দোলন, বন্ধ করা যাবে না’ ইত্যাদি স্লোগান দিচ্ছেন।

ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন জনসভায় প্রধান অতিথি থাকবেন আর প্রধান আলোচক থাকবেন যুক্তফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। জনসভায় প্রথমবারের মতো কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কাদের সিদ্দিকী যোগ দেন।