সাহেদ ও সাবরিনা দুজনের পক্ষে এখন একটু ওকালতি করবো-ড.নয়ন বাঙ্গালী

সারাদেশ
করোনা কে আমরা যতোটা মুখে মুখে ভয় পাই ততোটাই আবার থোরাই কেয়ার না করে দাপটের সাথে ঘুরতে ঘুরতে মনে মনে ভাবি আমারতো কিছু হয় নাই – আমিতো সুস্হই আছি । মরছেতো অমুক বা ধরছেতো তমুক মিয়ারে । যতক্ষন পর্যন্ত ঘার মটকাইয়া না ধরবে ততক্ষন কিন্তু ঘার নোয়াই না । সাহেদের পরিনতি কি কাউকে শিক্ষা দিচ্ছে , না বিনোদোনের খোরাক দিচ্ছে ? একজন বড় ধরনের অপরাধীও এখন তার বিষয়ে বলছে জোড় গলায় “ওরে বাটপার “ – হায় রে নিয়তি, পরেরে বাটে পড়া দেখলো এতো মজা লাগে কেনো আমাদের ,কিন্তু কৈ শিখিতো না কিছুই । আয়নায় নিজেকে দেখি না যে আমিতো সাহেদের ওস্তাদ বা বাপ ।ধরেন সাবরিনাকে যে ধরেছে পুলিশ হারুন – কতো বড় বাটপার , নিম্ন মানের পুলিশ কর্মকর্তা , আমার নিজেরও খুবই কাছের ছোটো ভাই এই হারুন যে কিনা ধরেছে আরেক প্রতারক নারীকে । যে হারুন শত শত কোটি টাকা লোপাট ও পাচার সহ গোটা জাতীর কাছে প্রশ্নের সম্মুখীন, যেনো শিয়ালের কাছে মুরগীর বর্গা ।প্রতিটি পাড়ায় , মহল্লায় সাহেদের বাবার বাবা , দাদারা বসবাস করে ।এমনকি একজন ওয়াড পর্যায়ের শুধু একজন যুবলীগ নেতার জীবন প্রনালীও আপনারা যদি যাচাই বাছাই করেন – দেখবেন জমি দখল, মাদক ব্যবসা, দাপট খাটিয়ে – ফাপড দিয়ে গরিবের শ্রমিকের হক মারা নিত্যদিনের ব্যপার যা ঘটছে সারা দেশ জুড়ে । এমন কোনো একটি মহল্লায় গেলে আপনি পাবেননা যে সেখানে মানুষ নির্যাতিত হচ্ছে না । পুলিশরা হেনো কোন এলাকায় নাই এই গুন্ডা বদমাইশদের সহযোগি না । এমন কোনো এলাকার লোকাল সাংবাদিক থেকে জাতীয় সাংবাদিক নেই দালালী , ভন্ডামী না করে টাকা উপার্জন করছে না , টাকা নিয়ে সংবাদ ছাপানো , টকশোতে গেষ্ট করা ইত্যাদি ।
আমি এসব বলছি না সাহেদ কে ছোটো অপরাধী বানানোর জন্য । ছোটো হউক বড় হউক অপরাধ অপরাধই – তবে আজ সাহেদ, কাল আরেক সাহেদ ধরা পড়বে আর সবাই মজা নিবে আর বলবে  “ওরে বাটপার”। কিন্তু পরিবর্তন হবে না , শিখবে না , পাল্টাবে না । ও আজ বাটে কিন্তু কাল আপনিও যে বাটে পড়বেন না তার কি ভরসা । আসলে অপরাধ অনেক গভীরে না – নিকটেই ।খোদ এই সরকারই প্রতারনা করেছে গোটা জাতীর সাথে । বিনা ভোটে এমপি , মেয়র , মন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী সেখানে কেনো এক সাহেদকে বলবো ওরে বাটপার । আমিতো মনে করি সরকার কে দেখলেই বলা উচিত “”””ওরে বাটপার “”””।
আমি যখন রাজনীতিক শুরু করি তখন থেকে আজ অবদি শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষন যতোবার শুনেছি তার গভীরে গিয়েছি, প্রতিটি লাইনের ইন্টারপ্রিটিশন খুঁজেছি -এমনকি এখনও এই ভাষন শুনলে গভীর মনোযোগী হই ।ঠিক সাহেদ ও সাবরিনা দুজনার নৈতিক গতিবিধি ও তাদের সকল কর্মের একটি তালিকা যতবার ব্রেইনস্টর্ম করছি ততোবার গোটা রাজনীতিকে দেখি । এই ব্যক্তি গুলোকে অনুপ্রবেশকারী বলছি নিজেদের তুলসিপাতা প্রমান করার জন্য ; এরা রাজনীতিবিদদের শিক্ষানবীশ ।কোন নেতা নাই ফাপড দিয়ে নেতাগডি ফলায় না ; বলেন ? দেখান ? ওমুক ভাইয়ের লোক , নেত্রীর ঘরের লোক , ভাইয়ার কাছের মানুষ ,ম্যাডাম বলে দিয়েছে ইত্যাদি । এসব ডায়লগ সমাজের পরিচিত কিন্তু জিম্মি।এখনো বর্নচোরা দেশের শীষ’ সাংবাদিকের তকমা গায়ে লাগানোর পা চাটা দলেরা টকশোতে দেশের চলমান সব ঘটনা স্বীকার করে তুলে ধরবে ঠিকই কিন্তু শেষ লাইনে যুক্ত করবে একটি কমন কথা যে শেখ হাসিনা তথা প্রধানমন্ত্রীর ভাবমূর্তি নষ্ট করছে এরা ; কতো একা তিনি সামাল দিবে । আরে বোকাচোদারা প্রধানমন্ত্রী যে নাটের গুরু বলতে সরম লাগে । সব শেয়ালের একই রা ।