ভিপি নুরসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রচ্ছদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নির্বাচন চলাকালে রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে ডাকসুর সদ্য নির্বাচিত সহ-সভাপতি (ভিপি) নূরুল হক নুর এবং বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার রাতে রাজধানীর শাহবাগ থানায় রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা এই মামলা করেন। পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার আজ মঙ্গলবার এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে হলে ভাংচুর চালানোরও অভিযোগও এনেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলে ভোট শুরুর আগে সবগুলো প্যানেলের প্রতিনিধিদের সামনে নয়টি ভোটবাক্সের মধ্যে ছয়টিকে দেখিয়ে সিলগালা করে ভোটগ্রহণ শুরু করতে চায় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু, অপর তিনটি ভোটবাক্স কেনো দেখানো হয়নি, তা নিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠলে ভোটগ্রহণ বন্ধ থাকে। একপর্যায়ে নুর সে বিষয়টি নিয়ে হল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে রোকেয়া হলে ঢুকলে হামলার শিকার হন।

সোমবার অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ২৫টি পদের মধ্যে ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক বাদে বাকিগুলোতে ছাত্রলীগের প্রার্থীরাই বিজয়ী হয়েছেন। সহ-সভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা মো. নুরুল হক। তিনি পেয়েছেন ১১ হাজার ৬২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পেয়েছেন ৯ হাজার ১২৯ ভোট। নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে জয়লাভ করেছেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। রাব্বানী ১০ হাজার ৪৮৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাধারণ কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা রাশেদ খান পেয়েছেন ৬ হাজার ৬৩ ভোট।

এ ছাড়া সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) নির্বাচিত হয়েছেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। তিনি পেয়েছেন ১৫ হাজার ৩০১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ফারুক হোসেন পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৯৬ ভোট।

সোমবার দিবাগত রাত সোয়া ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে ফলাফল ঘোষণা করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, চিফ রিটার্নিং কর্মকর্তা অধ্যাপক এস এম মাহফুজুর রহমান প্রমুখ।