খালেদা জিয়াসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

প্রচ্ছদ

বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়াসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে বড় পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ (চার্জ)

গঠনের ওপর শুনানি পিছিয়ে আগামী ৩১ জানুয়ারি ধার্য করেছেন আদালত। আসামিপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বকশী

বাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী বিশেষ জজ আদালত-২ এর বিচারক এএসএম রুহুল আমিন মঙ্গলবার সময়

মঞ্জুর করে এ দিন ধার্য করেন।

এ মামলার আসামি ব্যারিস্টার মো. আমিনুল হকের পক্ষে হাইকোর্ট মামলার কার্যক্রম স্থগিত করায় শুনানি পেছানোর আবেদন




করেন তার আইনজীবী। এদিন মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়া অন্য মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন বলে

আদালতকে অবহিত করেন তার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া। তিনি খালেদা জিয়ার পক্ষে হাজিরা দেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, এই মামলায় অভিযুক্ত আসামিদের সংখ্যা ১৩ জন। এই মামলায় অভিযুক্ত আসামিদের মধ্যে

জামায়াত নেতা সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মুহম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে।

এ ছাড়া বিএনপি নেতা এমকে আনোয়ার মারা গেছেন। বর্তমানে এ মামলার আসামি দাড়িয়েছে ১০এ।

২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

পরে ওই বছরের ৫ অক্টোবর পুলিশ তদন্ত করে ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

এ মামলা দায়েরের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন খালেদা জিয়া।

২০০৮ সালের ১৬ অক্টোবর হাইকোর্ট বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন।

কনসোর্টিয়াম অব চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইম্পোর্ট অ্যান্ড এপপোর্ট করপোরেশনকে (সিএমসি) বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির

অনুমোদন দিয়ে রাষ্ট্রের কয়লা উত্তোলনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দরদাতা সিএমসির সঙ্গে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির উৎপাদন,

ব্যবস্থাপনাও রক্ষণাবেক্ষণ চুক্তি করায় রাষ্ট্রের প্রায় ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার ক্ষতি হয় বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়।