বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সিঙ্গাপুর যুবলীগের আলোচনা সভা

প্রচ্ছদ প্রবাস

শাহাদাত রাসেল চৌধুরী সিঙ্গাপুর থেকে: বাংলাদেশে আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সিঙ্গাপুর শাখার আয়োজনে আজ শনিবার সিঙ্গাপুর সময় সোন্দায় ৮ টায় মোস্তফা প্লাজার এক অভিজাত হোটেলের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয় এই আলোচনা সভা।

সিঙ্গাপুর যুবলীগের সভাপতি কে এইচ আল আমিনের সভাপতিত্বে এবং ভার প্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ওয়াসিম আকরামের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মইনুল হাসান নিখিল,অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিঙ্গাপুর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ফয়েজ খান, সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, সিঙ্গাপুর যুবলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বৃন্দসহ, সিঙ্গাপুর যুবলীগের টেম্পানীস সিটি,তোয়াজ সিটি ,জুরং ইস্ট সিটি উডল্যান্ড সিটি এবং সেরাঙ্গুন মহানগর কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ,এছাড়াও অনুষ্ঠানে মূল্যবান বক্তব্য রাখেন সিঙ্গাপুর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আরিফ হোসেন, আন্তজার্তিক বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন সিঙ্গাপুর শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহাদাত রাসেল ,জাতীয় শ্রমিকলীগ সিঙ্গাপুর শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ভিডিও কলের মধ্যমে তার বক্তব্যে বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে আস্থা ও বিশ্বাস নিয়ে যুবলীগের নতুন কাউন্সিল করে দিয়েছেন তার সে সম্মান রক্ষা করার দায়িত্ব যুবলীগের সকল নেতা কর্মীদের যুবলীগের কোনো নেতা কর্মী এমন কোনো কাজ না করার জন্য অনুরোধ করেন যাতে করে যুবলীগের সম্মান নষ্ট হয় এবং সিঙ্গাপুর আওয়ামীলীগের সকলের প্রতি শুভেচ্ছা জানান।

বক্তারা আরো বলেন যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনি যে উদ্দেশ্য নিয়ে যুবলীগ প্রতিষ্ঠান করেছিলেন সেই লক্ষ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে যুবলীগের অতিত কর্মকান্ড থেকে শিক্ষা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। বাংলাদেশের সকল আর্জনের সাথে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ জড়িত। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নবনির্বাচিত কমিটির সভাপতি ও সাধারণত সম্পাদক কে শুভেচ্ছা জানানো হয়, এবং তাদের সঠিক দিক নির্দশনা নিয়ে বর্হিবিশ্বে অন্যতম সংগঠন হিসেবে সিঙ্গাপুর যুবলীগ এগিয়ে যাবে।অনুষ্ঠানের শেষে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কেটে স্লোগান দিয়ে নেতা কর্মীরা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করে অনুষ্ঠান সমাপ্ত করেন।