দায়িত্ব পেলে নেত্রীর সপ্নের সংগঠন উপহার দেওয়ার চেষ্টা করবো

রাজনীতি সারাদেশ

শাহাত রাসেল চৌধুরী: দায়িত্ব পেলে নেত্রীর সপ্নের সংগঠন উপহার দেওয়ার চেষ্টা করবো। বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা কর্মীদের মধ্যে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। নেতা নির্বাচনে সবাই এখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছার উপর নির্ভর করছে। সাধারণ নেতা কর্মীদের পছন্দের যোগ্য নেতৃত্বের মধ্যে অন্যতম একজন খায়রুল ইসলাম জুয়েল, যিনি সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে সফল ভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। খায়রুল ইসলাম জুয়েলের রয়েছে বর্ণাঢ্য  রাজনৈতিক জীবন।

ছাত্রলীগের দূর দিনের রাজনীতির সময় রাজপথে থেকে অান্দলন সংগ্রামে নেতৃত্বে ছিলেন প্রথম সারিতে ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হলের সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। ছাত্র জীবন শেষ করে সরাসরি যুক্ত হন কৃষিবীদ আ ফ ম বাহা উদ্দিন নাসিমকে অনুসরন করে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতির সাথে। রাজনীতির জন্য নির্যাতিত ও নিপিড়ীত হয়েছিল বহুবার এক এগারোতে নেত্রীর মুক্তি আন্দোলনে ভূমিকা ছিলো গুরুত্বপূর্ণ, এক এগারোতে বিনা বিচারে জেলখানার নির্যাতনের শিকার হয়েছে টানা এক বছর।

সন্তানের নির্যাতন খুব কাছ থেকে দেখেছেন জুয়েলের মা, সহ্য করতে না পেরে বুক ভরা কষ্ট নিয়ে অসুস্থ হয়ে বিদায় নিয়েছেন দুনিয়া থেকে।দলের জন্য সবসময়ই ত্যেগি পরিচ্ছন্ন ও বির্তক মুক্ত নেতা হিসেবে পরিচিত তিনি। বেক্তিগত জীবনে পরিচ্ছন্ন ও ধার্মিক একজন মানুষ। নিজের সহ ধর্মিনীও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনৈতিক সাথে সম্পৃক্ত থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ের শামসুরনাহার হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বঙ্গবন্ধুর আর্দশ লালন করা আওয়ামী রাজনৈতিক পরিবারের এই নেতা সাধারন কর্মীদের পছন্দের তালিকায় অন্যতম। কর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক এবং বিপদে পাশে থেকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে পাশে থাকা, অত্যান্ত স্পষ্টবাদী একজন জনপ্রিয় তরুন নেতা। আগামীর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্বে সাধারণ নেতা কর্মীরা এমন একজন যোগ্য ও ত্যেগি মানুষকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পছন্দের তালিকায় রেখেছেন।

তিনি নিজেও বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে সোনার বাংলা বিনির্ম্মানের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন সেখানে উনার পাশে পরিচ্ছন্ন ও ত্যেগি মানুষগুলোর প্রয়োজন, তাহলেই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে পারবেন সপ্নের সোনার বাংলায়। তাই মাননীয় নেত্রি যদি আমাকে যোগ্য মনে করে দায়িত্ব প্রধান করেন তাহলে চেষ্টা করবো নেত্রীর সম্মান অক্ষূন্ন রেখে একটি শক্তিশালী ও পরিচ্ছন্ন সংগঠন উপহার দেওয়ার চেষ্টা করবো।