তবুও দেশে আসতে পারছেনা নির্যাতিত নাসরিন

সারাদেশ
মো: জাফর চৌধুরীঃ অসহায় স্বামী ও সন্তানদের মুখে তিন বেলা খাবার নিশ্চিত করতে জনশক্তি রপ্তানীর ব্যবসায়ী নরুর মাধ্যমে ২২/১০/২০১৯ তারিখে সৌদী পাড়ি দেন নাসরিন। আদম ব্যবসায়ী নরু বাসা বাড়ির কাজের কথা বলে বিদেশে পাঠালেও সেখানে যেয়ে নাসরিনকে যৌন দাসী হিসেবে কাজের জন্য প্রতিনিয়ত শারিরিক ও মানুষিক অত্যাচাার চালাতে থাকে। বিদেশে
পৌছানোর এক সপ্তাহ পরেই নাসরিন বিষয়টি তার স্বামী খোরশেদ আলমকে জানান। খোরশেদ ইমু ভিডিও কলে নাসরিনের সাথে কথা বলা কালীন সময়েই নাসরিনকে বেদম প্রহারের দৃশ্য দেখতে পেয়ে তা মোবাইলে রেকর্ড করে তা নুরুকে দেখিয়ে নাসরিনকে ফেরত আনার অনুরোধ জানালে আদম ব্যবসায়ী নুরু খোরশেদকে চড় থাপ্পড় দিয়ে তাকে বিদায় করলে এ বিষয়ে খোরশেদ পল্লবী থানায় একটি জিডি করেন। কোন উপায় না পেয়ে নাসরিনের স্বামী খোরশেদ প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসং¯’ান মন্ত্রণালয় এর সচিব বরাবর স্ত্রীকে ফিরে পেতে লিখিত আবেদন জানান। তবুও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় এর কোন সহায়তা না পেয়ে এলাকাবাসীর সহায়তায় নুরুর সহযোগী লিপি আক্তারকে চাপ দিলে লিপি এলাবাসীর সামনে নাসরিনকে ফিরিয়ে আনবে মর্মে লিখিত দিলেও সেই দিনের পর থেকেই লিপি গায়েব হয়ে থাকেন। খোরশেদ জানান আমার স্ত্রীর পাসপোর্ট নং ঊন০৬২০৫৩৬, মতিঝিল এলাকার গ ঐ ঞৎবধফ রহঃবৎহধঃরড়হধষ, জখ-১১৬৬, ১৪৭/২, উ,ও,ঞ, ঊঢঞ, ৎড়ধফ- ফকিরাপুল, ঢাকা-১০০০। এর মালিক নুরুর পার্টনার মকবুল এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি আমাকে কোনরুপ সহায়তা না করে আরো বিভিন্ন হুমকি ধামকি দেয়। এদিকে নাসরিন প্রতিনিয়ত যৌন ও শারিরিক নির্যাতন সইতে না পেরে অসু¯’ হয়ে
বর্তমানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।