চাঁদের বিয়ে

সাহিত্য ও দর্শন

সব সোনামণি জটলা পাকায়

বাড়ির উঠোন জুড়ে;
নয়াচাঁদ দেখার লাগি
হেথায়-হোথোয় ঘুরে।

এক ফাঁলি চাঁদ ওই হেঁসেছে
চামল গাছের ফাঁকে;
তুলোবরণ মেঘপাহারায়
রয়েছে ঘাড় বাঁকে।

আনন্দেতে খুশির ছলাত
নাঁচছে তাধিন তা-তা;
খাঁন বাড়ির ওই উঠোন-মাঝার
খুশির বাজার পাতা।

দেখবি কে আয়, আকাশ হাঁটে;
আজ যে চাঁদের বিয়ে,
সাঁজলো দেখ কেমন করে
মিটি তারা দিয়ে।

মেঘ গুরগুর বাজ ডামাডোল
জোসনা মিঠির আলো;
চাঁদের বুড়ি, আমিও যাব
একটু জ্ব্যেতি জ্বালো।

কাঁটবো সাঁতার জোসনা জলে
নীল পরীদের সাথে;
তারার ঢিলে পাঁড়বো তারা
রাখবো আঁচল পাতে।

মেঘের ভেলা চড়বো সবে
ভাসবো আকাশ দেশে;
বুড়ির কপল কাঁটবো চুমু
শতেক ভালোবেসে।

নামলে তুমি বকুলতলা
উঠোন আলো করে;
মনের মতন কইবো কথা
দেখবো পরাণ ভরে।

লালচে গোধূল মেঘের আবির
মাখবো চাঁদের গায়ে;
ঝিকিমিকি জোঁনাক দিয়ে
বুকুলতালা ছায়ে।

বিঁনি সুঁতোয় তোমার গলে
বেলি ফুলের মালা;
কাছে গিয়ে পড়াবো সই
মিটবে মনের জ্বালা।

কলমে…
নাঈমুল ইসলাম।