গরিব নয়, দলীয় লোকদের পেট ভরাচ্ছে সরকার : রিজভী

জাতীয়

করোনাভাইরাসের কারণে দেশে চলমান সরকারি ছুটির কারণে কর্মহীন গরিব মানুষের খাবারের ব্যবস্থা না করে সরকার শুধু নিজেদের দলীয় লোকদের পেট ভরাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছেন, ‘আজকে সারা দেশে করোনাভাইরাসের কারণে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু আমরা দেখছি, সরকার এগিয়ে আসছে না। তারা নানাভাবে চৌর্যবৃত্তি করে দলীয় লোকদের পেট ভরাচ্ছে।’

শনিবার (২৫ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর ধোলাইখাল এলাকায় গরিবদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আজকে বাংলাদেশে প্রস্তুতি না থাকায় করোনা আক্রান্ত রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনার কারণে সারা দেশে কর্মহীন মানুষ যারা দিন আনে দিন খায়, তারা খাবার খুঁজছেন। তারা খাবারের জন্য ছোটাছুটি করছেন। এই দুঃসময়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা পকেটের টাকায় ত্রাণ দিচ্ছে। আর সরকারি দলের মেম্বার চেয়ারম্যানরা ত্রাণের চাল, ডাল ও তেল চুরি করছে। গরিব মানুষের জন্য সরকার কিছুই করছে না বরং ত্রাণের হাজার হাজার বস্তা চাল পাওয়া যাচ্ছে আওয়ামী লীগের মেম্বার-চেয়ারম্যানের বাড়িতে। এইটা কী একটা জনকল্যাণমূলক সরকারের চরিত্র? সরকার তো এই মুহূর্তে নেমে আসবে যাতে প্রতিটি মানুষ কিছু পায়। তাদের যাতে পেট ভরে।’

তিনি বলেন, ‘কিন্তু নানাভাবে চৌর্যবৃত্তি করে দলীয় লোকদের পেট ভরাচ্ছে সরকার। এভাবে চলতে পারে না। আজকে সব রাজনৈতিক দলগুলোর উচিত ছিল একসঙ্গে কর্মহীন গরিব মানুষের পাশে দাঁড়ানো। সেটা হয়নি। করোনায় ভয় পেলে হবে না। বরং সবাইকে এগিয়ে এসে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তা মোকাবিলা করতে হবে।’

রিজভী বলেন, ‘বিএনপির লোকেরা পকেটের টাকায় গরিব মানুষকে ত্রাণ দিচ্ছে। এজন্য সরকার বাধা দেয়। মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করছে। তারা যতই গ্রেফতার করুক আমরা এই মহামারিতে মানুষের পাশে আছি এবং থাকব। রমজান মাসেও গরিব মানুষের পাশে দাঁড়ানো অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।’