কিশোরগঞ্জকে আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন শহর গড়ে তুলতে চান মোঃ শরীফুল ইসলাম

সারাদেশ

আমাদের সমাজে এমন কিছু মানুষ আছেন যারা নিজেরা স্বপ্ন দেখতে এবং অন্যদের স্বপ্ন দেখাতে পছন্দ করেন। জনাব মোঃ শরীফুল ইসলাম খুব সম্ভবত তাদেরই একজন। কিশোরগঞ্জ পৌর শহরের অনাগত সকল শিশুদের জন্যে হলেও একটি আদর্শ, আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন শহর গড়ে তোলার যে স্বপ্ন সেখানকার মানুষ দেখেন সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করার চলমান সকল প্রচেষ্টাসহ ভবিষ্যতে সেগুলোকে আরো বেগবান করার মাধ্যমে তিনি একটি প্রথম শ্রেনীর আদর্শ, আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন কিশোরগঞ্জ গড়ে তুলতে চান ।

ব্যক্তিগত জীবন, সমাজ, রাষ্ট্র, বর্তমান পরিস্থিতি, সম্ভাবনা ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে দীর্ঘ আলাপচারিতায় আমরা যেন খুজে পেয়েছিলাম কোন এক রুপকথার সাগর পাড়ি দেয়া একজন পরীক্ষিত নাবিককে। যিনি আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার রুপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে নিজের সবটুকু মেধা ও মনন কাজে লাগিয়ে এগিয়ে চলেছেন দুর্বার গতিতে৷

আমাদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন – “আমি বিশ্বাস করি একমাত্র আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টাতেই গড়ে উঠতে পারে একটি আদর্শ পরিকল্পিত নগরী। সবাই সচেতন হলে আমাদের সমাজব্যবস্থা ক্রমেই হয়ে উঠবে জনকল্যাণমুখী। যেখানে আমি-আপনি, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শুধুমাত্র নিরাপদে বেড়ে উঠা নয় বরং হয়ে উঠবো আলোকিত৷ আমি মনে করি আমাদের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্নের কিশোরগঞ্জ তথা বাংলাদেশ বিনির্মানে সবচেয়ে বড় বাধা নাগরিক অসচেতনতা । আর সেই বাধা অতিক্রম করেই আমাদের পৌছাতে হবে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে। তাই আমাদের সবারই উচিত নিজে সচেতন হওয়া এবং অন্যদের সচেতন করে তোলা। আমাদের দেশ,শহর,সমাজ গড়ার দায়িত্বটা মূলত আমাদেরই। আর তাই আমাদের স্লোগানেও আমরা বলতে চেয়েছি – ‘দেশ আমার,দায়িত্বও আমার; আগামীর বাংলাদেশ সকলে মিলে। ‘

মন্ত্রমুগ্ধের মত আমরা শুনে যাচ্ছিলাম তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা। পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়নের জন্য রাজনৈতিক প্রচেষ্টার পাশাপাশি তিনি ইতিমধ্যেই গড়ে তুলেছেন নাগরিক,পরিকল্পিত কিশোরগঞ্জ,আমার ইশকুল , এসো সবুজ হই সহ বেশ কয়েকটি সফল সামাজিক সংগঠন। যেসব সংগঠনে শহরের প্রায় ৫০০ শত তরুন-তরুনী প্রতিনিয়তই সক্রিয়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়াও তিনি স্থানীয় অন্যান্য সামাজিক সংগঠনগুলোর সাথে সমন্বয় করে সফলভাবে পরিচালিত করছেন ১০টিরও বেশী প্রকল্প। যার মাধ্যমে এখন পর্যন্ত উপকৃত মানুষের সংখ্যা প্রায় পাচ হাজারেরও বেশী মানুষ।

ব্যাক্তিজীবনে তিন সন্তানের জনক প্রকৌশলী মোঃ শরীফুল ইসলাম শরীফ অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে ডিপ্লোমা পাশ করেন ময়মনসিংহ পলিট্যাকনিকেল ইন্সটিটিউটে। ছাত্রজীবনে তিনি ময়মনসিংহ পলিট্যাকনিকেল ইন্সটিটিউট ছাত্রসংসদের জনপ্রিয় সহকারী সাধারন সম্পাদক ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক  হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন৷ পরবর্তীতে ২০০৩ সালে কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। দীর্ঘ ১০ বছর সফলতার সাথে দায়িত্বপালনের পর ২০১৫ সালে আবারো বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ,কিশোরগঞ্জ জেলার সভাপতি নির্বাচিত হন এবং বেশ সফলতার সাথেই এখন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। এছাড়াও তিনি শহর সমাজসেবা কার্যালয়ের বিশেষ প্রকল্প “প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মান উন্নয়ন ” এ স্থানীয় সংসদ কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।