এশিয়ার সেরা একশ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় নেই ঢাবি

শিক্ষাঙ্গন

এশিয়ার সেরা একশ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় নেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। তবে এই তালিকায় শুধু ঢাবি নয়, বাংলাদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়েরও নামই আসেনি। তবে ৫০০টির মধ্যে বাংলাদেশের মাত্র ৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম এসেছে। যার মধ্যে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় দুটি এবং বেসরকারি চারটি।

বিভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মান নিয়ে ব্রিটিশ কোম্পানি কুয়াকুয়ারেলি সাইমন্ডস লিমিটেড (কিউএস) পরিচালিত সাম্প্রতিক এক জরিপে এ তথ্য প্রকাশ পেয়েছে।
বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এ বছর ১৭৫ তম অবস্থানে রয়েছে। অন্যদিকে ৩০১ থেকে ৩৫০ এর মধ্যে আছে বেসরকারি ব্র্যাক, নর্থ সাউথ ও ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। আর শেষের পঞ্চাশটির মধ্যে স্থান পেয়েছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।
এশিয়ার ৫শ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় স্থান পাওয়া বাংলাদেশের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ১২৭তম। কিউএস র‍্যাংকিং-এ ২০১৮ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল ১২৪তম এবং ২০১৭ সালে ছিল ১০৯তম। সে হিসেবে বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপিঠের মান গত দু’বছরে ১৮ পয়েন্ট নিচে নেমে গেছে।
প্রতিবেদন অনুযায়ী, এশিয়ার সেরা ১০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ২৩টি চীনের। এতে ভারতের আটটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম রয়েছে। পাকিস্তানের রয়েছে দু’টি। তবে প্রথম ৩০টির মধ্যে ভারত বা পাকিস্তানের কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম নেই।
মূলত প্রাতিষ্ঠানিক খ্যাতি, শিক্ষক ও কর্মচারীদের দক্ষতা, শিক্ষক-ছাত্রের অনুপাত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিভাগীয় কৃতিত্ব তথা গবেষণা এবং আন্তর্জাতিক পর্যালোচনার ভিত্তিতে এই জরিপ প্রতিবেদন প্রকাশ করে প্রতিষ্ঠানটি।
কিউএস এর তালিকায় সেরা ১০টি বিশ্ববিদ্যালয় হলো- ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুর (এনইউএস), দ্য ইউনিভার্সিটি অব হংকং, নানিয়াং টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি (এনটিইউ) সিঙ্গাপুর, চীনের সিনহুয়া ইউনিভার্সিটি, পিকিং ইউনিভার্সিটি ও ফুদান ইউনিভার্সিটি, হংকং ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, কোরিয়ান অ্যাডভান্স ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, চাইনিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকং এবং দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।
সূত্র: পার্সটুডে