অচেনা অঙ্ক

সাহিত্য ও দর্শন

আমার এম বি শেষ হয়ে গেছে।
তাই
অস্থীর লাগছে খুব,
অসহ্য লাগছে সব।
মনে হচ্ছে জ্বালিয়ে দিই
খোলা চুল গুলো

নাহ্ সেটাও সম্ভব নয়
কারণ….
তুমি চুলের মুঠি ধরে
আদর করতে পছন্দ করো।

খুব ইচ্ছে করছে তোমাকে দেখতে,
তুমি কি করছো!
সকালে কি খেয়েছো
ঠিক মত ওষুধ খেলে কি না?
বারোটার মধ্যে গোসল..
তারপর রেডি হয়ে নামাজ পড়ে
আমার জন্য তোমার অমূল্য দোআ গুলো।

আহা…
আমার জান পাখিটা, আজ
মলিন হয়ে আছে।
বিষন্নতায়, প্রিয় গোলাপ গুলোকেও
বিবর্ণ লাগছে।
কিচ্ছু ভালো লাগছে না আমার
কিচ্ছু না।

এক ফোঁটা পানিও ছুঁয়ে দেখিনি আজ,
ক্ষুধা গুলো, লজ্জায় ঢেকে রেখেছে
তাদের অস্তিত্বের সম্বল টুকু।

আমি আঁধারের সপ্ত ডিংগায়
সকালের দ্রাঘিমা পরিক্রম করি।

আমি যাতনায়, নিশিন্দা তুল্য লাযার
ভ্রমণ সঙ্গ করি।
আমার দুপুর গড়িয়ে সন্ধ্যা নামে
শূন্যতায় ভর করে।

চিৎকার করে ওঠে, আমার সারা দেহ জুড়ে..
তোমাকে ছোঁয়ার, সাংবিধানিক বার্তা গুলো।

আমি প্রচন্ড দগ্ধে, চব্বিশটি নিম গাছ
গিলে ফেলি অজান্তেই।
রুটি গুলো এলোমেলো পাখা মেলে,
হাত পুড়ে যায়, মন খারাপ করা
রাতের মতো।

রাতের কথায় মনে পড়লো!

আজ সত্তুর ঘণ্টা হবে বোধ হয়!
ঘুম গুলো পালিয়েছে
অচেনা নক্ষত্রের মতো….

তুমি ভালো আছো তো!
কতবার
অজান্তেই মোবাইল টা ছুঁয়ে ফেলি জানো,

অঙ্ক কম বুঝি বলে
হিসেব টা ঠিক মত কষতে পারি না।
সারাদিনে তুমি !
নাকি…
আমার নিশ্বাস বেশি।

 

✒️ নিলা রহমান নিলা