২১২ ছাগল ছিনতাইচেষ্টার মামলায় আসামি মোহাম্মদপুরের ছাত্রলীগ সভাপতি

আইন আদালত জাতীয় বাংলাদেশ রাজনীতি

২১২টি ছাগল ছিনতাইয়ের চেষ্টার অভিযোগে মোহাম্মদপুর থানার ছাত্রলীগ সভাপতিসহ নয়জনের বিরুদ্ধে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় মামলা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রগুলো বলছে, অভিযুক্তদের সবাই ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।




মোহাম্মদপুর থানার ছাত্রলীগ সভাপতির নাম মুজাহিদ আজমী তান্না। মামলার বাদী ছাগল ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, গত ১১ আগস্ট একদল ব্যবসায়ী যশোরের বারোবাজার পশুরহাট ও ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে

২১২টি ছোটবড় বিভিন্ন রং এর ছাগল নিয়ে ঢাকায় আসেন। চাঁদার দাবিতে অভিযুক্তরা ট্রাকটি মোহাম্মদপুরের বাবর রোডের

জহুরি মহল্লা এলাকায় আটকে রাখেন। তাঁরা ছাগলগুলো নামান ও একটি ক্লাব ঘরে ছাগল ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম, বাবু খান,

শেখ সোলেমান, মো. নুরুজ্জামান, ফারুক বিশ্বাস, মোহাম্মদ মাসুদ মণ্ডলকে আটকে রাখেন। এ সময় র‍্যাব-২ এর একটি টহল

দল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে অনুমোদনহীন পশুর হাট তদারকি ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছিল। খবর পেয়ে

দলটি ঘটনাস্থলে যায় ও জিম্মিদশা থেকে ব্যবসায়ীদের উদ্ধার করে।




ভুক্তভোগীরা তিন ছিনতাইকারীকে শনাক্ত করেন। তাঁরা হলেন, ইয়াসির আরাফাত, জাহিদুল ইসলাম ও মো. রায়হান। জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা বলেন, এই ঘটনায় তাঁদের সহযোগী ছিলেন মুজাহিদ আজমীসহ আরও পাঁচজন। অভিযুক্তরা লাইসেন্স ছাড়া অবৈধভাবে ওয়াকিটকি ব্যবহার করছিলেন এবং নিজেদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য বলে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন।




মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শরীফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি আজ প্রথম আলোকে বলেন, এই ঘটনায় টেলিযোগাযোগ আইনে একটি ও চাঁদাবাজির অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে। পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।




এদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সূত্র নাম না প্রকাশ করার শর্তে প্রথম আলোকে বলেন, তাঁরা হাতেনাতে আসামি গ্রেপ্তার করেছেন। রাজনৈতিক পরিচয় যাচাই-বাছাই করেননি। পরে জানতে পেরেছেন অভিযুক্তরা ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।



4 thoughts on “২১২ ছাগল ছিনতাইচেষ্টার মামলায় আসামি মোহাম্মদপুরের ছাত্রলীগ সভাপতি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *